বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি জেনে নিন

প্রিয় পাঠক আমরা আজকের পোস্টটিতে বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব। আপনারা অনেকেই বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ সম্পর্কে জানতে চান। তাদের জন্যই আমরা আর্টিকেলটিতে বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি সহ বিস্তারিত আলোচনা তুলে ধরব।
বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি
পোস্টসূচিপত্রঃআপনি যদি বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ খাওয়াতে চান তাহলে অবশ্যই এই সিরাপের কাজ কি এবং কি রোগে ব্যবহার করা হয় এটি জেনে খাওয়াতে হবে। আর এজন্য আমরা পোস্টটিতে বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ সম্পর্কে আলোচনা করেছি।

ভূমিকা

বাচ্চাদের অনেক ক্ষেত্রে শ্বাসকষ্ট বা হাঁপানি হয়ে থাকে। তখন সে ক্ষেত্রে এই ওষুধটি বা সিরাপটি ব্যবহার করা হয়। তাছাড়া গলায় ঠান্ডা ও শ্লেষ্মা জমে গেলে এই সিরাপ এর ব্যবহার করা হয়। বাচ্চাদের প্রায় ঠান্ডা ও সর্দি লাগতে দেখা যায়। বিশেষ করে শীতকালে বাচ্চাদের ঠান্ডা ও সর্দি বেশি লেগে থাকে। এ সময় আপনারা বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ খাওয়াতে পারেন। 

তবে এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব। তাই আপনারা যদি বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি

বাচ্চাদের ঠান্ডা কাশি ওষুধের জন্য এই সিরাপটি ব্যবহার করা হয়। এই সিরাপটি বেক্সিমকো কোম্পানি লিমিটেড প্রস্তুত করেছে। চলুন আমরা এখন বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি জেনে নেই।
  • সাধারণত বাচ্চাদের সর্দি কাশি , এলার্জি , হাঁপানি ও ঠান্ডা জনিত রোগ ইত্যাদি সমস্যায় সমাধানে এই ওষুধ খাওয়ানো হয়ে থাকে।
  • আপনার বাচ্চার যদি এলার্জি বা হাঁপানি হয়ে থাকে তাহলে এই সিরাপটি খাওয়াতে পারেন। ডাক্তারের প্রায় এই সিরাপটি দিয়ে থাকে।
  • তাছাড়াও শিশুদের বুকে ঠান্ডা কারণে কফ জমে থাকলে এই সিরাপটি খাওয়াতে পারেন। এতে করে ঠান্ডা জনিত রোগ সেরে যাবে।
  • এছাড়াও বাচ্চাদের ঠান্ডার কারণে ফুলু ও শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণের ফলে কাশি ও সর্দি হয়ে থাকে। তবে সে ক্ষেত্রে এই টোফেন সিরাপ খাওয়াতে পারেন।
  • অনেক ক্ষেত্রে ঠান্ডার সময় শিশুদের শ্বাসনালী বা গলাতে শ্লেষ্মা বা কফ জমে যায় তখন আপনারা এই সিরাপটি শিশুকে নিয়ম অনুযায়ী খাওয়াতে পারেন।
  • ঠান্ডার কারণে ফুসফুসে কফ জমে গেলে তা পরিষ্কার করতে সাহায্য করে এই সিরাপ। তাই বাচ্চাদের ঠান্ডা জনিত সমস্যায় এই সিরাপ খাওয়াতে পারেন।
আশা করছি আপনারা বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। আপনারা অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী টোফেন সিরাপটি বাচ্চাদের খাওয়াবেন।

বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ দাম কত

আপনারা হয়তো অনেকেই বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর দাম জানেন না। তাদের জন্যই আমরা আজকের এই অংশে বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ দাম কত এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। সাধারণত টোফেন সিরাপটি বেক্সিমকো কোম্পানি তৈরি করে থাকে। বর্তমানে বাজারে এই সিরাপটির দাম ৬৫ টাকা। 
এই সিরাপটি ১০০ মিলিগ্রাম সাইজের বোতলে পাওয়া যায়। যার দাম ৬৫ টাকা। তবে বাজারে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দোকানে দামের হালকা কিছু পার্থক্য দেখা যেতে পারে। যারা এই সিরাপটি কিনবেন তারা অবশ্যই সিরাপের গায়ে লেখা কোম্পানির দাম লেখা অনুযায়ী কিনবেন।

বড়দের টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম

আপনারা যারা প্রাপ্তবয়স্ক বা বড়রা রয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে অবশ্যই নিয়ম অনুযায়ী টোফেন সিরাপ সেবন করতে হবে। তাহলে সঠিক উপকার পাবেন এবং ঠান্ডা জনিত রোগ থেকে মুক্তি পাবেন। বড়দের ক্ষেত্রে টোফেন সিরাপ প্রতি ৫ ঘন্টা পর ২ চা চামচ(১০ মিলি) করে সেবন করতে হবে। 
তবে দিনে বড়দের ক্ষেত্রে পাঁচ চামচ গ্রহণ করতে পারেন। সবচেয়ে ভালো হয় ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী গ্রহণ করা। ডাক্তার আপনাদের সঠিক নিয়ম বলে দিবে। তবে সাধারণত আপনারা বড়দের ক্ষেত্রে এই সিরাপ ২ চামচ করে খেতে পারেন।

টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম 

আমরা সকলেই জানি টোফেন সিরাপ আমাদের ঠান্ডা জনিত রোগ ও এলার্জি রোগ নিরাময়ে সাহায্য করতে পারে। আর এজন্য আপনাদের টোফেন সিরাপ সঠিক নিয়মে সেবন করতে হবে। তাই আপনাদের অবশ্যই টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জেনে রাখতে হবে। বাচ্চাদের জন্য টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম রয়েছে।
  • শিশুর বয়স ০ থেকে ১ বছরের মধ্যে হয়ে থাকলে সেক্ষেত্রে শিশুকে হাফ চা চামচ দিনে দুইবার খাওয়াতে হবে। আপনারা প্রতিদিন সকাল ও রাতে খাওয়াতে পারেন।
  • শিশুর বয়স যদি এক থেকে তিন বছর হয়ে থাকে তাহলে শিশুকে এক চামচ করে দিনে দুইবার সকাল ও রাতে খাওয়াতে হবে।
  • বাচ্চার বয়স যদি আবার ৩ থেকে ৬ বছর হয়ে থাকে তখন বাচ্চাকে দেড় চামচ করে দিনে রাতে দুইবার খাওয়াতে হবে।
  • আর বাচ্চার বয়স ৬ থেকে ১২ বছর হয়ে থাকলে এক্ষেত্রে বাচ্চাদের ২ চা চামচ সকালে ও রাতে খাওয়াতে হবে।
আমার উপরে বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম আলোচনা করেছি। এই সিরাপ খাওয়ানোর আগে অবশ্যই বাচ্চাকে কিছু খাইয়ে নেবেন অর্থাৎ বাচ্চার পেট ভরা থাকতে হবে। বাচ্চাকে খাবার খাইয়ে তারপর এই সিরাপ খাইয়ে দিবেন।

টোফেন সিরাপ এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

টোফেন সিরাপ নিয়ম অনুযায়ী গ্রহণ না করলে বা সঠিকভাবে সেবন না করলে অনেকের ক্ষেত্রে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। তাই অবশ্যই টোফেন সিরাপ নিয়ম অনুযায়ী গ্রহণ করতে হবে যা আমরা উপরের অংশে আলোচনা করেছি। অনেক ব্যক্তির ক্ষেত্রে টোফেন সিরাপ খাওয়ার ফলে কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। চলুন সেই পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলো দেখে নেওয়া যাক।
  • অনেক সময় বাচ্চাদের ক্ষেত্রে এই সিরাপ খাওয়ার ফলে ঘুম ঘুম অনুভব বেশি হয়ে থাকে। বাচ্চাদের তখন ঘুম বেশি হয়।
  • তাছাড়া ও শিশুদের মুখে ও ত্বকে শুষ্কতা ভাব দেখা দিতে পারে। তাই অবশ্যই এই সিরাপ ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া শিশুকে বেশিদিন খাওয়াবেন না।
  • এছাড়াও শিশুদের মাঝে মাঝে মাথা ঘোরা ভাব দেখা দিতে পারে। এর জন্য এই সিরাপ খাওয়ানোর আগে শিশুকে কিছু খাবার খাওয়ায় নিবেন।
  • নিজে নিজে কিনে কখনোই বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ খাওয়াবেন না। চিকিৎসকের নিকট পরামর্শ অনুযায়ী নিয়ম মেনে এই সিরাপ খাওয়াবেন।
  • তাছাড়াও এই সিরাপের প্যাকেটের ভিতরে একটি কাগজ রয়েছে যেখানে আপনারা বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে লেখা রয়েছে, সেগুলো ভালোভাবে পড়ে বাচ্চাদের সিরাপ খাওয়াবেন।
আশা করছি আপনারা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া এগুলো বুঝতে পেরেছেন। আপনাদের মনে রাখা উচিত এসব সিরাপ ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া বাচ্চাদের খাওয়ানো উচিত নয়। তবে খাওয়াতে পারেন সাত দিনের বেশি নয়।

টোফেন সিরাপ এর কাজ কি

টোফেন সিরাপ মূলত বেক্সিমকো কোম্পানি উৎপাদন করে আসছে। এই সিরাপটি সাধারণত শিশুদের ঠান্ডা জনিত রোগ ও বড়দের বিভিন্ন রোগে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। বিশেষ করে শিশুর ঠান্ডা লাগলে বা এলার্জি হলে এই সিরাপ খাওয়াতে পারেন। তাছাড়াও বাচ্চাদের ঠান্ডা কারণে বুকে কফ জমে গেলে বা ফুসফুসে কফ জমে গেলে এই সিরাপ সেবন করাতে পারেন। 

অনেক সময় বাচ্চাদের গলায় ও শ্বাসনালীতে শ্লেষ্মা জমা হতে পারে এ সময় এই সিরাপ খাওয়াতে পারেন। আবার বড়দের ক্ষেত্রে অনেক সময় শ্বাসকষ্ট হাঁপানি দেখা যায় সে ক্ষেত্রে এই সিরাপ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী কিছুদিন সেবন করতে পারেন। এই সিরাপ সাধারণত সাত দিনের বেশি গ্রহন করা উচিত নয়। তাই আপনারা সঠিক নিয়ম অনুযায়ী গ্রহণ করবেন এবং ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন।

শেষ কথা

আশা করছি প্রিয় পাঠক আপনারা এতক্ষণে বাচ্চাদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি এ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে গেছেন। তাছাড়া আমরা টোফেন সিরাপ সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য আজকের পোস্টটিতে আলোচনা করেছি। এর ফলে আপনারা টোফেন সিরাপ খাওয়ার আগে সতর্ক হতে পারবেন এবং সঠিক নিয়মে টোফেন সিরাপ সেবন করতে পারবেন। আপনার পরিচিতদের টোফেন সিরাপ এর কাজ কি এ সম্পর্কে জানাতে পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আজকের ইনফো নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url