শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট সম্পর্কে জানুন

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং একটি জনপ্রিয় পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে ।আমাদের দেশের অনেক মানুষ এই মুক্ত পেশার দিকে ছুটছে এবং প্রতিমাসে লাখ লাখ টাকা আয় করছে ।আপনারা হয়তো অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং কি ,কিভাবে করে এবং বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং বিষয় সম্পর্কে কিভাবে পারদর্শী করতে হয় তা জানেন । প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, আপনারা নিশ্চয়ই শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট ও ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা লাগে তা জানতে আজকের পোস্টটিতে এসেছেন। তবে চিন্তার কোন কারণ নেই আজকের পোস্টটিতে আমরা শিক্ষার্থীদের জন্য সেরা ১১ টি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করব।
পোস্টসূচিপত্রঃপর্যাপ্ত দক্ষতা অর্জনের পর অনেকেই জানেন না কোন কোন মার্কেটপ্লেস, অনলাইন ফ্রীলান্সিং ওয়েবসাইট থেকে অর্থ উপার্জন করা যায় সুতরাং আজকে আমি শিক্ষার্থীদের সেরা 11 টি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা দিব।

ফ্রিল্যান্সিং কি? what is freelancing

ফ্রিল্যান্সিং মূলত মুক্ত পেশা। এখানে কাজ করার কোন ধরা বাধা নিয়ম নেই। আপনি ইচ্ছামত কাজ করতে পারবেন। মূলত ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের কাজ করাকে ফ্রিল্যান্সিং বলা হয়ে থাকে। এখানে সবকিছু অনলাইনে কাজ করতে হয়। চাকরির মত ফ্রিল্যান্সিংও একটি পেশা। শুধু এখানে নিজের ইচ্ছামত কাজ করা যায় আর চাকরির ক্ষেত্রে আপনাকে অফিসের নিয়ম অনুযায়ী কাজ করতে হয়। কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং পেশায় আপনি যখন ইচ্ছা কাজ করতে পারবেন। 
 
ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে কাজ করে আমাদের দেশে লক্ষ লক্ষ মানুষ সফল হচ্ছে। এই ফ্রিল্যান্সিং করার কোন ধরা বাধা নিয়ম নেই। এছাড়াও চাকরির মত ফ্রিল্যান্সিং করার কোন অফিস টাইম নেই। আর ফ্রিল্যান্সিংয়ের সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে এখানে আপনার কোন মালিক থাকবে না বা আপনার কোন বস থাকবে না এবং এমপ্লয়ি থাকবে না। 

এখানে আপনি অনলাইনে বিদেশী যে কোম্পানির কাজ পাবেন সেটা শুধু আপনি করে দিবেন বা বিদেশি কোন বায়ারের কাজ পেলে আপনি সেটি করতে পারবেন। এখানে কেউ আপনার বস বা মালিক নেই। নিজের ইচ্ছামত স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারবেন। তবে চিন্তার কোন কারণ নেই যারা স্টুডেন্ট তাদের জন্য আজকের পোস্টটিতে আমরা শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট সম্পর্কে তুলে ধরার চেষ্টা করব।

শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট

বর্তমানে দিনে দিনে ফ্রিল্যান্সিং এর চাহিদা বেড়ে চলেছে। সেই সাথে সাথে ফ্রিল্যান্সিং শেখার প্রতিষ্ঠান সেটিও অধিকারে বেড়ে চলেছে। আগে মানুষ ফ্রিল্যান্সিং কি তা সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝতো না। তবে এখন এ সম্পর্কে বোঝানোর জন্য ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠানগুলো শিখিয়ে থাকে। তবে বর্তমানে অনেক ভুয়া ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান বের হয়েছে যারা গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তেমন কিছু শেখায় না। 
তবে আপনি এগুলো যাচাই-বাছাই করে দেখে নিবেন কোন কোন ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান সেরা। আমরা যারা শিক্ষার্থী আছি তাদের জন্য আমার দেখা সেরা ১১ টি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট খুঁজে পেয়েছি যা আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরবো। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলোর নাম।
  • Upwork (আপওয়ার্ক)
  • Fiverr (ফাইভার)
  • Freelancer (ফ্রিল্যান্সার)
  • Designhill (ডিজাইনহিল)
  • Toptal (টপটাল)
  • LinkedIn and LinkedIn ProFinder (লিঙ্কডইন এবং লিঙ্কডইন প্রোফাইন্ডার)
  • PeoplePerHour 
  • Guru (গুরু)
  • 99designs (99 ডিজাইন)
  • Kwork
  • Seoclerk (সিওক্লার্ক)
আপনারা উক্ত ওয়েবসাইট গুলোতে কাজ করতে পারেন। এগুলোই আমার দেখা সেরা শিক্ষার্থীদের জন্য বা যেই হোক তাদের জন্য সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটগুলোতে আপনারা বায়ারের সাথে কাজ করতে পারবেন। তারা আপনাদের বিভিন্ন ধরনের কাজ দিবে আপনাদের সেটি করে দিতে হবে। এবং কাজ শেষে পেমেন্ট করে থাকে। চলুন আমরা এই ওয়েবসাইটগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে আসি।

ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা লাগে

আপনারা অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা লাগে। তবে চিন্তার কোন কারণ নেই আজকের পোস্টটিতে আমরা তা জানানোর চেষ্টা করব। বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যাদের মধ্যে কোনটি ভাল সেটি আপনাকে চুজ করে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হবে। আপনার আশেপাশে যদি ভালো ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান দেখতে পান তাহলে আপনি সেখানে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন। এছাড়াও আপনি বাংলাদেশের বিভিন্ন ধরনের অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং শেখার প্রতিষ্ঠান রয়েছে যেগুলো তো আপনি কোর্স করে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন। 
আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চান, তাহলে আপনাকে অবশ্যই ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা খরচ হয় তা সম্পর্কে জানতে হবে। আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন , ডিজিটাল মার্কেটিং , ওয়েব ডিজাইন , ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সহ এর যে কোন একটি কোর্স শিখতে চাইলে আপনাকে গুনতে হবে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা অর্থাৎ আপনার ফ্রিল্যান্সিং শিখতে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা লাগতে পারে। তবে অনেক সময় অনেক প্রতিষ্ঠান ডিসকাউন্ট দিয়ে থাকে যেখানে আপনি ৭ থেকে ১০ হাজার টাকা দিয়েও ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন। 

বর্তমানে মার্কেট প্লেসে সবচেয়ে গ্রাফিক ডিজাইনের চাহিদা বেশি। তাই আপনি ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারেন। এতে আপনার ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা লাগতে পারে। বর্তমানে বাংলাদেশের সেরা ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান অর্ডিনারি আইটি ফ্রিল্যান্সিং করিয়ে থাকে। আপনি এখানে মানিব্যাগ গ্যারান্টি সহ ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারবেন। তাহলে আশা করছি আপনারা বুঝতে পারছেন শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট কোনগুলো এবং এটা শিখতে কত খরচ হয়।

শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইন চাকরি।শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট

বর্তমানে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার পাশাপাশি তাদের খরচ চালাতে বিভিন্ন ধরনের চাকরি করতে চাই। তবে কোন চাকরিটি করবে সেটি তারা ঠিক করতে পারেনা। তবে শিক্ষার্থীদের জন্য সবচেয়ে ভালো চাকরি হলো অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং করা। এতে করে তাদের হাতে সময় থাকবে এবং তারা স্বাচ্ছন্দে অনলাইনে কাজগুলো করতে পারবে। আরে অনলাইনে চাকরি যদি ঘরে বসে হয় তাহলে তো কোনো কথাই নেই। ইচ্ছামতো করতে পারবেন পড়াশোনার পাশাপাশি। আপনি ঘরে বসেই এখন অনলাইনে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

বর্তমানে বাংলাদেশে সবচেয়ে সেরা ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান হল অর্ডিনারি আইটি যারা প্রতি মাসে নিজেরাও লাখ লাখ টাকা ইনকাম করে সাথে সাথে অন্যান্য ব্যক্তিদের ফ্রিল্যান্সিং শিখিয়ে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে সাহায্য করে। আপনি যদি অর্ডিনারি আইটিতে ফ্রিল্যান্সিং শিখে আয় করতে পারবেন। এছাড়াও তাদের প্রতিষ্ঠানেও চাকরি অফার করে থাকে। আপনি ইচ্ছা করলে তাদের ওয়েবসাইটে আর্টিকেল রাইটিং এর চাকরি করতে পারেন। আপনি এটি ঘরে বসেই চাকরি করতে পারবেন। চলুন এবার জেনে নেই কি কি কাজ করতে পারবেন এবং সেখান থেকে আয় করতে পারবেন।

কনটেন্ট রাইটিং জব বা লেখালেখি করে আয়

আপনি অর্ডিনারি আইটিতে বাংলা লেখালেখি করার অর্থাৎ কনটেন্ট রাইটিং করে অনলাইনে চাকরি করতে পারবেন। যেখানে আপনি ঘরে বসেই বাংলা লেখালেখি করে ইনকাম করতে পারবেন। আপনি যদি অর্ডিনারি আইটিতে কন্টেন রাইটিং করে আয় করতে চান তাহলে আপনার কাছে একটি স্মার্টফোন , ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার যেকোনো একটি থাকলেই আপনি সেখানে বাংলায় লেখালেখি করে আয় করতে পারবেন। 

এখানে আপনি প্রতি মাসে ৮০০০ থেকে ১৫ হাজার পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন। আপনি অর্ডিনারি আইটিতে জব করতে চাইলে তাদের ওয়েবসাইট অর্ডিনারি আইটি লিখে সার্চ করে তাদের যোগাযোগ পেজে কন্টাক করুন।

ওয়েবসাইট ক্রয় করে ইনকাম

আপনি ইচ্ছা করলে তাদের কাছ থেকে ওয়েবসাইট কিনে অনলাইনে আয় করতে শুরু করতে পারেন। এছাড়াও আপনি যে কোন ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান থেকে এই ওয়েবসাইট ক্রয় করে বাংলা লেখালেখি করে ঘরে বসে আয় করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি যদি ওয়েবসাইট তৈরি করা শিখেন তাহলে আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করে মাসে ৩০০০০ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন। 

আপনি নিজের ওয়েবসাইটে কাজ করে কন্টেন রাইটিং করে অনলাইনে অতি সহজেই ইনকাম করতে চাচ্ছেন। তাহলে এখনি ওয়েবসাইট ক্রয় করে নিন। এতে আপনি ইচ্ছামত আর্টিকেল রাইটিং অর্থাৎ কনটিং রাইটিং করে অনায়াসে মাসে ৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং করে ইনকাম

আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরে এক্সপার্ট হয়ে থাকেন তাহলে অতি সহজেই আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং করে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বিশেষ করে আপনি বিভিন্ন ধরনের কোম্পানিতে ডিজিটাল মার্কেটিং হিসেবে চাকরি করতে পারবেন। যেখানে কাজের বেতন অনেক ভালো
বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে সবচেয়ে বেশি কাজে চাহিদা হল ডিজিটাল মার্কেটিং যা সম্পর্কে জানলে আপনি যেকোনো সময় ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করতে পারবেন। শুধু থাকতে হবে আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে পরিপূর্ণ জ্ঞান যার ফলে আপনি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন।

শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইনে আয় করার উপায় 

বর্তমানে অনলাইনে শিক্ষার্থীদের জন্য আয় করার অনেক মাধ্যম রয়েছে। যেগুলোতে শিক্ষার্থীরা কাজ করে অর্থ উপার্জন করতে পারবে। আপনি যদি একজন শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন অথবা বেকার এবং চাকরি না করেন তাহলে আপনি এই উপায়গুলো অবলম্বন করে অনলাইনে আয় করতে পারবেন। চলুন সেই উপায় গুলো সম্পর্কে জেনে নিন।
  • ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয়
  • কন্টেন রাইটিং করে আয় করা
  • ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে ইনকাম
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন করে ইনকাম
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করে ইনকাম
  • লেখালেখির কাজ করে ইনকাম করা
  • ওয়েবসাইট ব্লগিং করে আয় করা
  • ফেসবুক মার্কেটিং করা
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম
  • ভিডিও এডিটিং করে আয় করা যায়
  • ট্রেডিং করে আয় করা 
  • অনলাইনে ডাটা এন্ট্রি করা
উপরোক্ত উপায় ছাড়াও আরো অনেক উপায় রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি অনলাইনে অতি সহজে আয় করতে পারবেন। তবে আপনার শুধু থাকতে হবে দক্ষতা। আপনি যদি উক্ত কাজগুলোর প্রতি দক্ষতা অর্জন করেন তাহলে আপনি সেই কাজগুলো করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হবে। আর এই কাজগুলো কোন কোন ওয়েবসাইটে করবেন তার জন্য আমরা শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট সম্পর্কে তুলে ধরেছি যা উপরে বিস্তারিত বলা হয়েছে।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক আশা করছি আপনার এতক্ষণে ভালোভাবেই বুঝে গেছেন শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট কোনটি সেরা। আমরা এই সম্পর্কে উক্ত পোস্টে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। যা দেখলে আপনি বুঝতে পারবেন। এছাড়াও আমরা আরও আলোচনা করেছি ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা লাগে। শুধু শিখলেই হবে না আপনাকে কাজ করা মনোভাব থাকতে হবে। 

এর সাথে সাথে  ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে বিভিন্ন বিষয়ের উপর দক্ষতা থাকতে হবে। তাহলে আপনি একমাত্র সফল ফ্রিল্যান্সার হয়ে উঠবেন। আশা করছি বুঝতে পেরেছেন। পোস্টটি ভাল লেগে থাকলে শেয়ার করুন। এবং অন্যকে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে সাহায্য করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আজকের ইনফো নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url