খুসখুসে বিরক্তিকর কাশির ঔষধ নাম এবং কাশি দূর করার ঘরোয়া উপায় জেনে নিন

প্রিয় পাঠক আপনার নিশ্চয়ই খুশখুসে বিরক্তকর কাশির ঔষধ সম্পর্কে জানতে আজকের পোস্টটিতে এসেছেন। তবে চিন্তার কোন কারণ নেই, আজকের আর্টিকেলটিতে আমরা আপনাদের জন্য খুশখুসে বিরক্তকর কাশির ঔষধ ও খুশখুসে বিরক্তকর কাশি দূর করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাই আপনারা অতিরিক্ত কাশি হলে কি ওষুধ খাব এ সম্পর্কে জানতে পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
খুসখুসে বিরক্তিকর কাশির ঔষধ ও কাশি দূর করার উপায়
আমাদের প্রায় বিভিন্ন সময়ে খুসখুসে কাশি হয়ে থাকে। এই কাশি অনেকটা সবার কাছে বিরক্ত মনে হয়। এজন্য অনেকেই কাশি দূর করার উপায় খুঁজে থাকে। তাদের জন্যই আজকের এই পোস্টে কাশি দূর করার উপায় ও কাশি দূর করার ঔষধের নাম সম্পর্কে আলোচনা করা হবে।

ভূমিকা

বর্তমানে প্রায় সকলেরই ঋতু পরিবর্তনের কারণে খুসখুসে কাশি হয়ে থাকে। বিশেষ করে শীতের সময় ঠান্ডা লাগার কারণে কাশি হয়ে যেতে পারে। এই খুশখুসে কাশি সবার কাছে অনেকটা বিরক্তকর মনে হয়ে থাকে। কারণ এ সময় কাশির সাথে সাথে গলায় ব্যথা হয়ে থাকে। আর এ ধরনের কাশিতে সাধারণত কফ বের হয় না শুধু কাশি হতে থাকে। এক্ষেত্রে কাশি হলে অনেকের ক্ষেত্রে কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। তাই আপনার অনেকেই খুশি কাশি দূর করার উপায় ও ঔষধ সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। 
তাদের কথা চিন্তা করে আমরা আজকের পোস্টটিতে খুশি বিরক্তকর কাশির ঔষধ ও খুসখুসে বিরক্তকর কাশি দূর করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাই আপনার যদি কাশি হয়ে থাকে এবং আপনি কাশি দূর করার ওষুধ সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন তাহলে আজকের পোস্টটি মনোযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন।

খুসখুসে বিরক্তকর কাশি হওয়ার কারণ সমূহ

খুসখুসে কাশি হওয়ার বিভিন্ন কারণ রয়েছে। বিশেষ করে ঋতু পরিবর্তন ও গরমকালে অতিরিক্ত ঘেমে গেলে সেই ঘাম থেকে কাশি হতে পারে। তাছাড়াও অতিরিক্ত ধুলাবালির মধ্যে থাকলে কাশি হয়ে থাকে। আরও বিভিন্ন ধরনের কারণ রয়েছে যেগুলো আমরা নিচে আলোচনা করব। নিম্নে খুসখুসে বিরক্তকর কাশি হওয়ার কারণ সমূহ তুলে ধরা হলোঃ
  • অনেকের বিভিন্ন ধরনের কাজ করার পরে গরমে ঘেমে থাকে। এ সময় ঘামা অবস্থায় গোসল করলে ঠান্ডা লেগে কাশি হয়ে থাকে।
  • আবার যারা দীর্ঘদিন ধূমপান করে এবং অতিরিক্ত ধূমপানের কারণে এ ধরনের কাশি হয়ে থাকে।
  • এছাড়াও শীতের সময় ঠান্ডা লাগার কারণে ভাইরাস সংক্রমণের ফলে খুসখুশি শুষ্ক কাশি হয়ে থাকে।
  • অনেক ক্ষেত্রে আবার অ্যালার্জিজনিত কারণে খুসখুসে বিরক্তকর কাশি হয়ে থাকতে পারে।
  • যাদের হাঁপানি রোগ রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে অনেক সময় খুসখসে কাশি হয়ে থাকে।
  • বিভিন্ন ধরনের স্টোরয়েড জাতীয় বা উচ্চ রক্তচাপ বৃদ্ধির ওষুধ গ্রহণ করার ফলে এ ধরনের কাশি হতে পারে।
  • তাছাড়া যাদের হৃদরোগের সমস্যা রয়েছে তাদের ক্ষেত্রেও শুষ্ক কাশি হয়ে থাকে।
  • অনেকের আবার মানসিক চাপ থেকে এ ধরনের কাশি হয়।
  • এছাড়াও যারা পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করে না তাদের ক্ষেত্রেও অনেক সময় এ ধরনের কাশি হতে দেখা যায়।
  • বায়ু দূষণযুক্ত এলাকায় বা ধুলাবালি যুক্ত স্থানে বসবাস করলে এ ধরনের বিরক্তকর খুসখুসে কাশি হয়ে থাকে।
  • অনেকের আবার নিউমোনিয়া রোগ রয়েছে তাদের ক্ষেত্রেও এ ধরনের কাশি দেখা দিতে পারে আবার শ্বাসযন্ত্রে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমের ফলে এ ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে।
তাহলে প্রিয় পাঠক আশা করছি আপনারা এতক্ষণে খুসখুসে বিরক্তকর কাশি হওয়ার কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। এখন সে কারণগুলো ভালোভাবে জেনে নিয়ম অনুযায়ী কিছু উপায় অবলম্বন করলে কাশি থেকে মুক্তি পাওয়া যায় এবং খুসখসে কাশি প্রতিরোধ করা যায়।

খুসখুসে বিরক্তিকর কাশির ঔষধ 

আপনার অনেকেই খুসখুশে বিরক্তকর কাশির ওষুধ সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। তাদের জন্যই আমরা এই অংশে খুসখুসে কাশির ওষুধ সম্পর্কে আলোচনা করব। কারণ প্রায় আমাদের মধ্যে অনেকের এ ধরনের কাশি হয়ে থাকে। সাধারণত ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে এই খুশখুসে কাশি হতে দেখা যায়। তবে আপনারা চাইলে কিছু ওষুধ গ্রহণের মাধ্যমে এ ধরনের কাশি দূর করতে পারবেন। 
তবে অনেক ধরনের ওষুধ রয়েছে যেগুলো আপনাদের ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী গ্রহণ করতে হবে। আমরা এখন শুধু আপনাদের জন্য কিছু খুশখুসে বিরক্তিকর কাশির ঔষধ ও ট্যাবলেট নাম সম্পর্কে তুলে ধরার চেষ্টা করব।
  • Ocof
  • Nectar
  • Dexotix Tablet
  • Fenat Tablet
  • Dexpoten Plus Syrup
  • Abex
  • Madhuvas
  • Tofen
আপনারা উপরের দেওয়া শুকনো বা খুসখুসে কাশির ওষুধ গুলো ব্যবহার করতে পারেন। তবে অবশ্যই ভালো একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের নিকট পরামর্শ করে ওষুধগুলো কিনবেন। কারণ তারা আপনার কাশির ধরন বুঝে ঔষধের নাম বলে দিবে। তাছাড়াও আরো কিছু ধরনের খুশখুসে কাশির ওষুধ রয়েছে সেগুলো হলোঃ
  • Tussilon Capsule 
  • এমব্রোক্স ৭৫ 
  • ডেক্সোটিক্স ট্যাবলেট
  • পিউরিসাল সিরাপ
উপরের দেওয়া ডেক্সোটিক্স ট্যাবলেট এর দাম হল মাত্র ১০ টাকা। এই ট্যাবলেটটি প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিরা প্রতিদিন একটি করে সকাল ও রাতে সেবন করতে হবে। এই ওষুধটি খাওয়ার জন্য অবশ্যই পেট ভরা থাকতে হবে। এজন্য খাবার খাওয়ার পর এই ওষুধটি গ্রহণ করার চেষ্টা করবেন। আর যদি শিশুদের খাওয়াতে চান তাহলে অবশ্যই ভালো ডাক্তারের নিকট পরামর্শ করে খাওয়াবেন। তাছাড়াও আপনারা উপরের দেওয়া ওষুধ গুলো নিয়ম মেনে খেতে পারেন। 
উপরোক্ত ওষুধ গুলো নেওয়ার আগে অবশ্যই খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জেনে নিবেন। আপনারা যদি যেকোনো ফার্মেসির দোকান থেকে কেনেন তাহলে সেখান থেকে আপনারা ওষুধ খাওয়ার নিয়ম গুলো জানতে পারবেন। আর যদি কম বয়সী শিশু বা বাচ্চাদের ক্ষেত্রে খাওয়াতে চান তাহলে অবশ্যই ভালো অভিজ্ঞ ডাক্তারের নিকট পরামর্শ নিতে হবে।

খুশখুসে বিরক্তকর কাশি দূর করার উপায় ।গলা খুসখুস ও কাশি দূর করার উপায়

আপনারা চাইলে খুসখুসে কাশি দূর করার ওষুধ না গ্রহণ করেও কাশি দূর করার উপায় সম্পর্কে জেনে কাশি দূর করতে পারবেন। আমরা সকলে জানি অতিরিক্ত ওষুধ খাওয়া আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তাই আপনারা কাশির ওষুধ গুলো খাওয়ার পূর্বে কিছু উপায় অবলম্বন করে কাশি দূর করতে পারেন। 
এজন্য আমরা আজকের এই অংশে খুশখুসে বিরক্তকর কাশি দূর করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। তবে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে খুশখুসে বিরক্তকর কাশি দূর করার উপায় ও নিয়ম জেনে নেওয়া যাক।
  • গরম পানির সাথে লবণ মিশিয়ে মুখে গড়গড়া করলে কাশি অনেকটা দূর হয়ে যায়। তাই হালকা কুসুম গরম পানির সাথে লবণ মিশিয়ে নিন এবং কিছুক্ষণ পর পর পানি নিয়ে গড়গড়া করুন।
  • কাশি দূর করার জন্য আপনারা গরম দুধ অথবা গরম সুপ খেতে পারেন। এতে করে গলায় অনেকটা আরাম পাওয়া যায় আর কাশি অনেকটা কমে আসে।
  • আপনারা সকলে জানেন আদা চা কাশি দূর করতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আদাতে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন উপাদান যার ফলে এটি আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। এজন্য আপনি যদি খুসখুশে কাশি দূর করতে চান তাহলে প্রতিদিন আদা চা খেতে পারেন।
  • কাশি দূর করতে আপনারা প্রতিদিন গরম পানির ভাপ গলায় ওপর নিতে পারেন। এতে করে আপনার গলার শুকনো ভাব কমবে এবং গলা ব্যাথা অনেক কমে আসবে। তাছাড়াও শুকনো কাশির তীব্রতা অনেকটা কমে আসবে।
  • এছাড়াও তুলসী পাতার রস ঠান্ডা কাশি দূর করার জন্য খুবই কার্যকরী। তুলসী পাতার রস করে সাথে কিছু ২ চামচ মধু মিশিয়ে প্রতিদিন খেলে কিছুদিনের মধ্যেই আপনার শুকনো কাশি দূর হয়ে যাবে।
  • খুসখুসে বিরক্তকর কাশি দূর করার জন্য আপনারা কিছুদিন লবঙ্গ খেয়ে দেখতে পারেন। লবঙ্গ মুখের মধ্যে নিয়ে দাঁত দিয়ে চেপে ধরে রাখুন এবং লবঙ্গের রস খেয়ে ফেলবেন। তাছাড়া লবঙ্গ সম্পন্ন খেয়ে ফেললেও হবে। এভাবে কিছুদিন লবঙ্গ খেলে খুসখুসে কাশি নিরাময় হয়ে যাবে।
  • কাশি দূর করতে চাইলে সর্বপ্রথম আপনাকে ধূমপান পরিত্যাগ করতে হবে এবং মাদকদ্রব্য সেবন করা থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • ধুলাবালি ও স্বাস্থ্যকর জায়গা থেকে দূরে থাকতে হবে। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন বসবাসযোগ্য স্থানে থাকতে হবে।
  • শীতের সময় অবশ্যই হালকা গরম পানি দিয়ে গোসল করতে হবে। যাদের ঠান্ডা লাগে শীতের সময় তাদের ক্ষেত্রে গরম পানি দিয়ে গোসল করাই ভালো।
  • তাছাড়াও আদার সাথে গরম পানি দিয়ে প্রতিদিন খেতে পারেন। এতে করে শুকনো কাশি দূর হয়ে যায়।
  • দীর্ঘদিন ধরে শুকনো কাশি হয়ে থাকলে ডাক্তারের নিকট চিকিৎসা গ্রহণ করবেন। তারা আপনাদের সঠিক চিকিৎসা দেওয়ার মাধ্যমে খুসখুসে কাশি সমস্যার সমাধান করে দেবে।
  • এছাড়াও আপনারা ঘি এর সাথে গোলমরিচ মিশিয়ে খেতে পারেন। এর ফলে অনেক সময় খুসখুসে কাশি অনেকটা কমে আসে।
তাহলে আশা করছি আপনারা উপরে খুসখুসে বিরক্তকর কাশি দূর করার উপায় গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। আপনাদের মধ্যে কারো যদি দীর্ঘদিন ধরে এ ধরনের কাশি হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের কাছে গিয়ে চিকিৎসা গ্রহণ করবেন। কারণ দীর্ঘদিন এ ধরনের কাশি হলে শরীরের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হয়ে থাকতে পারে। তাছাড়া যাদের শুষ্ক কাশি হয়ে থাকে তারা উপরের উপায় গুলো অবলম্বন করে কাশি দূর করতে পারবেন।

গলায় খুশখুশে কাশির ঔষধ

আমাদের মধ্যে অনেকেরই গলায় খুসখুসে কাশি হয়ে থাকে। এজন্য আমরা অনেকেই গলায় খুসখুসে কাশির ঔষধ সম্পর্কে জানতে চাই। তাদের জন্যই আজকের এই পাঠে গলায় খুসখুসে কাশির ট্যাবলেট সম্পর্কে আলোচনা করা হবে। গলায় খুসখুসে কাশি সাধারণত বিভিন্ন কারণে হতে পারে। সেই কারণগুলো জেনে আপনাদের আগে থেকে প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সাধারণত শীতের সময় অতিরিক্ত ঠান্ডাতে শরীর ভালো লাগার পর এই ধরনের কাশি হয়ে থাকে। 
তাছাড়াও যারা ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা ও ধুলাবালিজনিত এলাকায় বসবাস করেন তাদের ক্ষেত্রে এ ধরনের কাশি হয়ে থাকে। তবে চিন্তায় কোন কারণ নেই আপনারা চাইলে কিছু ট্যাবলেট ও ঔষধ গ্রহণ করার মাধ্যমে গলায় খুসখুসে কাশি দূর করতে পারবেন। আর কথা না বাড়িয়ে গলায় খুসখুসে কাশি ট্যাবলেট এর নাম জেনে নেওয়া যাক।
  • Tofen tablet
  • Monas 10 tablet
  • Fexo 120 tablet
  • Keto A 100
  • Sendo 5mg
উপরের ওষুধ গুলো আপনারা গলায় খুসখুসে কাশি দূর করার জন্য খেতে পারেন। তাছাড়াও আপনারা তো আগের অংশেই খুশখুসে বিরক্তকর কাশির ঔষধ নাম সম্পর্কে জেনে এসেছেন। সেই ওষুধগুলো খেলেও গলায় খুশখুসে কাশি দূর হয়ে যায়।

অতিরিক্ত কাশি হলে কি ওষুধ খাব

আপনাদের মধ্যে অনেকেই অতিরিক্ত কাশি হলে কি ওষুধ খাব এ সম্পর্কে জানার জন্য গুগলে সার্চ করে থাকেন। তাদের কথা মাথায় রেখে আমরা আজকের পোস্টটিতে অতিরিক্ত কাশি হলে কি ওষুধ খাবেন সে সম্পর্কে তুলে ধরার চেষ্টা করব। সাধারণত অতিরিক্ত কাশি হলে গলায় ব্যথা হয়ে থাকে যা সকলের ক্ষেত্রে বিরক্তকর এবং কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। তবে চলুন এবার আমরা অতিরিক্ত কাশি হলে কি ওষুধ খাবেন এ সম্পর্কে জেনে নেই।
  • Brolyt 3mg
  • Askorel SR 50mg
  • Axodin 180
  • Keto A 100
  • Fexo 120
  • Ambrox 75SR
  • Encilor 10mg
  • Sendo 5mg
  • Klarix
আপনাদের যদি অতিরিক্ত কাশি হয়ে থাকে তাহলে উপরোক্ত ঔষধ গুলো গ্রহন করতে পারেন। অবশ্যই একটা কথা মনে রাখা উচিত ওষুধগুলো গ্রহণ করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। যেকোনো ধরনের ওষুধ খাওয়ার আগে অবশ্যই চিকিৎসার নিকট পরামর্শ নিয়ে খেতে হয়। তাই আপনারা যখন এই ওষুধগুলো কিনতে যাবেন তখন আপনার আশেপাশে দোকানে থাকা যেকোনো ডাক্তারের নিকট পরামর্শ নিয়ে ওষুধগুলো খাবেন।

শুষ্ক কাশির ঔষধের নাম

আপনি কি শুষ্ক কাশি সমস্যায় ভুগছেন। তাহলে সঠিক জায়গায় এসেছেন। আমরা এখন শুষ্ক কাশির ওষুধের নাম সম্পর্কে আলোচনা করব। আমাদের বিভিন্ন কারণে শুষ্ক কাশি হয়ে থাকে। আর এ ধরনের কাশি হয়ে থাকলে গলা ব্যথা হয় যা বিরক্তকর হয়ে দাঁড়ায়। এজন্য আমরা অনেকেই শুষ্ক কাশির ওষুধের নাম খুঁজে থাকি। আপনারা শুষ্ক কাশির ঔষধ হিসেবে অ্যালকফ কফজেল ট্যাবলেট (Alkof Cofgel Tablet) এই ট্যাবলেটটি গ্রহণ করতে পারেন। 
এটি শুষ্ক কাশি দূর করার জন্য ভালো কাজ করে থাকে। তাছাড়া আপনারা উপরের অংশগুলোতে শুষ্ক কাশি দূর করার ট্যাবলেটের নাম গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। আর আমরা এই অংশে শুধুমাত্র শুষ্ক কাশি দূর করার একটি ওষুধের নাম তুলে ধরেছি। আপনারা চাইলে উপরের অংশগুলো থেকে আরো কিছু শুষ্ক কাশির ওষুধের নাম জানতে পারেন। বিস্তারিতভাবে শুষ্ক কাশির ট্যাবলেটের নাম সম্পর্কে জানতে খুসখুসে বিরক্তিকর কাশির ঔষধ অংশটি পড়ুন।

শেষ কথা

আশা করছি প্রিয় পাঠক আপনারা এতক্ষণে খুসখুসে বিরক্তিকর কাশির ঔষধ ও কাশি দূর করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে গেছেন। তাছাড়া আপনাদের মধ্যে যারা কাশিতে ভোগে থাকছেন তারা কিছু উপায় অবলম্বন করার মাধ্যমে কাশি দূর করতে পারবেন। এজন্য আমরা আজকের পোস্টটিতে খুশখুসে কাশি দূর করার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করেছি। উক্ত অংশটি যদি আপনি ভালো করে পড়েন তাহলে কাশি দূর করতে পারবেন। আপনার পরিচিত বন্ধুদের কাশি হয়ে থাকলে তাদের কাশির ওষুধের নাম সম্পর্কে জানাতে পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আজকের ইনফো নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url