দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জেনে নিন

আমরা সকলেই দুধ খেয়ে থাকি। তাছাড়া দুধের সর অনেকে খেয়ে থাকেন। তবে আপনি জানেন কি দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা। যদি না জেনে থাকেন তাহলে সঠিক জায়গায় এসেছেন আজকের পোস্টটিতে আমরা দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা এবং দুধের সর দিয়ে ফেসপ্যাক সম্পর্কে আলোচনা করব। দুধ একটি পুষ্টিকর খাবার যা আমাদের অনেক উপকার করে থাকে তাই এর উপকার সম্পর্কে আমাদের জেনে রাখা উচিত।
দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা
আমরা সকলে জানি দুধের পুষ্টির গুণ বলে শেষ করা যাবে না তবে দুধের সরেরও উপকারিতা ও অপকারিতা রয়েছে। যা আপনাদের জানা উচিত। আপনি জানলে আপনিও দুধের সর খাওয়া শুরু করে দিবেন। তাই আপনাদের দুধের সর খাওয়ার নিয়ম ও দুধের সরের পুষ্টি জানতে হবে।

ভূমিকা

দুধের সঙ্গে সঙ্গে দুধের সরও অনেক উপকার করে থাকে। দুধ জাল দিতে দিতে দুধের উপরে সর তৈরি হয় যা দুধের উপর ভেসে থাকে দেখা যায়। এই সর দেখতে যেমন খেতেও তেমন মন মজা। এ দুধের সর দিয়ে আপনি ফেস প্যাক বানিয়ে আপনার রূপচর্চার কাজে লাগাতে পারেন। ত্বকের স্বাস্থ্যে দুধের সর খুবই উপকারী। 

এটি আপনি মুখের উপর ফেসপ্যাক বানিয়ে লাগিয়ে রাখতে পারেন এরপর ধুয়ে ফেলবেন দেখবেন আপনার মুখ উজ্জ্বল হয়ে গেছে। ত্বকের ওপর লাগালে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে এছাড়া নানা ধরনের উপকার করে থাকে যা আমরা একটু পরে দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা পর্বে জানতে পারবো।

দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা

তরল খাবারের মধ্যে সবচেয়ে পুষ্টিকর ও ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার এই দুধ। আর এই দুধের সর এর উপকারিতা রয়েছে যা আপনাদের জেনে নিতে হবে। কেননা এই দুধের সরে রয়েছে ল্যাকটিক অ্যাসিড যা আমাদের সান পোড়া ভাব কমায় এবং ত্বক প্রাকৃতিকভাবে উজ্জ্বল করে থাকে। এই দুধের সর ত্বকের উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।

তাছাড়াও আপনার ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধির জন্য সর খুবই উপকারী। আপনি যদি ফেসপ্যাক মুখে বা ত্বকে ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পেতে থাকবে। ত্বকের কালো দাগ দূর করতে দুধের সর এর কার্যকারিতা অপরিসীম। ত্বকের কালো দাগের উপর দুধের সর লাগিয়ে রাখুন কিছুদিন ব্যবহার করলে কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।
আর আরো যদি ভালো ফলাফল পেতে চান তাহলে দুধের সর এর সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে ফেসপ্যাক বানিয়ে মুখের কালো দাগের উপর ১০ থেকে ১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। মিশ্রণটি শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সরে থাকা প্রোটিন উপাদান আমাদের ত্বকের কালো দাগ সৃষ্টিকারী কোষ ধ্বংস করে নতুন কোষ সৃষ্টিতে সাহায্য করে। 

দুধের সর এ রয়েছে ভিটামিন ও খনিজ উপাদান যা আমাদের শরীরের ফিটনেস কে ধরে রাখে এবং শারীরিক দুর্বলতা কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া দুধের সরে রয়েছে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ডি, প্রোটিন এবং অন্যান্য বিভিন্ন ভিটামিন এবং খনিজ সমৃদ্ধ, এটি সুস্বাস্থ্য বজায় রাখার এটি স্বাস্থ্যকর খাবার।

দুধের সর খাওয়ার অপকারিতা

দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা যেমন রয়েছে তেমনি দুধের সর খাওয়ার অপকারিতা ও রয়েছে। এই দুধের সর অতিরিক্ত পরিমাণ খেলে আপনার পেটে ডায়রিয়া হতে পারে এবং আপনার শরীরের ওজন বৃদ্ধি পেতে পারে। এমনকি বেশি খেলে শরীরের বিভিন্ন ধরনের সমস্যাগুলো হতে পারে। 

এখন দেখা যাচ্ছে আপনি দুধ খাওয়াচ্ছে দুধ জ্বাল দিয়ে দুধের সর বানিয়ে বেশি খাচ্ছেন তাহলে এটি আপনার শরীরের জন্য হতে পারে ক্ষতিকর। আপনারা অল্প পরিমাণ খেতে পারেন তবে অতিরিক্ত খাওয়ার চেষ্টা করবেন না। তাহলে আপনারা জানতে পারলেন দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা কি কি।

দুধের সর দিয়ে ফেসপ্যাক

আপনি কি দুধে সর দিয়ে ফেসপ্যাক বানাতে চাচ্ছেন তাহলে সঠিক জায়গায় এসেছেন। ত্বকের যত্নে আমরা বিভিন্ন ধরনের ফেসিয়াল এবং ফেসপ্যাক কিনে থাকি যা আমাদের অনেক সময় কাজে আসে না। তবে আমরা ঘরোয়া পদ্ধতিতে দুধের সর দিয়ে ফেসপ্যাক বানিয়ে ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করতে পারি।

দুধের সর এক টেবিল চামচ লেবুর সঙ্গে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে আপনার ত্বকের উপর লাগিয়ে রাখুন অথবা মুখের ওপর মিশনটি লাগিয়ে রাখুন এরপর ১০ থেকে ২০ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন।

এই দুধের সর আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের কালো দাগ দূর করতে সহায়ক। আপনি যদি ত্বকের কালো দাগ দূর করতে চান তাহলে দুধের সর ওই স্থানে রাতে ঘুমানোর আগে লাগিয়ে রাখবেন। এভাবে নিয়মিত ব্যবহার করলে আশা করা যায় ভালো ফলাফল পাবেন।

দুধের সর দিয়ে নাইট ক্রিম

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে দুধের সর দিয়ে নাইট ক্রিমের উপকারিতা রয়েছে। দুধ এমন একটি তরল উপাদান যা চাইলে আপনার ত্বকের স্বাস্থ্যে অবদান রাখতে পারে। আপনার ত্বককে ভালো রাখতে দুধ খেতে পারেন এবং দুধের সর ত্বকের ওপর লাগিয়ে রাখতে পারেন এতে করে ত্বকের উজ্জ্বলতা ও ত্বকের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

দুধের সর দিয়ে নাইট ক্রিম তৈরির করার জন্য দুধের সর, গোলাপজল, অলিভ অয়েল, অ্যালোভেরা ও গ্লিসারিন একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট বা মিশ্রন তৈরি করুন। এই নাইট ক্রিমটি কিছুদিন ব্যবহার করলে ত্বকের যত্নে অর্থাৎ মুখের যত্নে ভালো ফলাফল পাবেন। এছাড়া দুধের সরের সাথে এলোভেরা মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে ত্বকে ব্যবহার করলে দারুন ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।

এটি ত্বকের কালো দাগ দূর করতে সক্ষম এবং উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে পারে। আপনার ত্বকে যদি কালো দাগ থাকে আর উজ্জ্বলতা যদি বৃদ্ধি করতে চান তাহলে দুধের সর দিয়ে নাইট ক্রিম বানিয়ে কিছুদিন ব্যবহার করে দেখতে পারেন আশা করি ভালো ভালো পাবেন।

দুধের সর দিয়ে ত্বকের যত্ন

আপনি যদি দুধের সর দিয়ে ত্বকের যত্ন নিতে চান তাহলে আপনার ত্বকের সকল সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। এই দুধের সর বর্তমানে ত্বকের যত্নে বহুলভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। বিশেষ করে আপনি যদি ঘরোয়া উপায়ে দুধের সর দিয়ে কোন ধরনের ফেসপ্যাক বা মিশ্রণ বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন তাহলে আপনার ত্বকের জন্য সেটি হবে কার্যকরী উপাদান যা আপনার ত্বকের উজ্জ্বলা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং ত্বকে থাকা বিভিন্ন ধরনের কালো দাগ দূর করবে। 

এছাড়াও আপনারা মুখে ব্রণ দূর করতেও দুধের সর প্রতিনিয়ত ব্যাবহার করতে পারেন। যা আপনার ত্বকের ব্রণের দাগ দূর করতে সাহায্য করে এবং ত্বক মসলিন করে থাকে। তাই আপনারা ত্বকের যত্নে দুধের সরসহ দুধ ও ব্যবহার করতে পারে।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক আশা করছি আপনারা এতক্ষণে দুধের সর খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জেনেছেন এবং এই দুধের সর দিয়ে কিভাবে আপনার ত্বকের যত্ন নিবেন এবং ফেসবুক বানাবেন তা সহ অনেক কিছু জানতে পেরেছেন যার ফলে আপনারা এখন থেকেই দুধ দিয়ে সর বানিয়ে ত্বকের উজ্জ্বলতায় ব্যবহার করতে পারেন। আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই শেয়ার করবেন এবং দুধের সর ত্বকে ব্যবহার করবেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আজকের ইনফো নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url